1. admin@dainikdeshkantho.com : admin : Humayun Kabir
শনিবার, ০৮ অক্টোবর ২০২২, ০৩:১৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
সালথায় জাতীয় জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন দিবস পালন নোয়াখালীর কবিরহাটে কিশোরীকে ধর্ষণ আলফাডাঙ্গায় পুজা মন্ডপ পরিদর্শন করলেন জেলা প্রশাসক মধুখালী উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার যোগদান মাদারীপুরে বিশ্ব শিক্ষক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান আনিসুর রহমানের জানাজা অনুষ্ঠিত যুক্তরাজ্য-যুক্তরাষ্ট্র সফর নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন বিকেলে চাটখিলে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের দায়ে বিভিন্ন মেয়াদে ৩ জনের কারাদণ্ড নৌকা মনোনয়ন প্রত্যাশী মেয়র প্রার্থী শারদীয় দুর্গা পূজামন্ডপ পরিদর্শন পৌরসভা শারদীয় দুর্গোৎসবে পূজামন্ডপ পরিদর্শন ও শুভেচ্ছা বিনিময় করেন পৌর আওয়ামী সাধারণ সম্পাদক

‘সরকার একটা ঘর দিলে আমরা শান্তিতে বাঁচতে পরতাম’- এমন আকুতি গৃহহীন অসহায় বৃদ্ধা জায়েদা

  • আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ২৪ মার্চ, ২০২২
  • ৮১ বার পঠিত

 

এস.এম স্বাধীন-শরীয়তপুর প্রতিনিধি:

 

বর্তমান সরকার জমি আছে ঘর নাই- এমন অসহায় লোকদের গৃহনির্মাণ করে দিলেও শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ উপজেলার অসহায় বৃদ্ধ মোতালেব মোল্লার ভাগ্যে জুটেনি বর্তমান সরকারের গৃহনির্মাণ প্রকল্পের ঘর।

ভেদরগঞ্জ উপজেলার চরকুমারীয়া ইউনিয়নের হাওলাদার কান্দি গ্রামের মৃত আলী হোসেন মোল্লার ছেলে অসহায় বৃদ্ধ মোতালেব মোল্লা ৩০ বছর যাবত শ্বশুর বাড়ির জায়গায় পাটখড়ির ঘরে বসবাস করছেন। গৃহহারা মোতালেব মোল্লার এই কষ্টের খবর স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সরকারের কোনো কর্মকর্তার নজরেও আসেনি।

সরেজমিন দেখা গেছে, ভাঙা ঘর, ঘরের বেড়া ভাংগা। ঘরের ভেতর শোয়ার জন্য একটি বাঁশের মাচা করে বৃদ্ধ স্ত্রী জায়েদা বেগমকে নিয়ে কোনোরকম রাত কাটাচ্ছেন। রান্না করার জন্য নেই আলাদা কোনো ঘর। ঘরের সাথে চল দিয়ে চলছে কোনো রকম রান্নার কাজ। বৃষ্টি হলেই তাদের দুজনকে ভিজতে হয় অবিরাম।

মোতালেব মোল্লার স্ত্রী জায়েদা বেগম কেঁদে কেঁদে বলেন, বাবা কোনো রকম বাইচা আছি এক বেলা খাইলে আরএক বেলা হয় না। শীতের মধ্যে প্রতি বছর খুব কষ্ট করতে হয়। শীতের মধ্যে এত কম্বল সরকার দিল, আমাদের কপালে একটাও জোটেনি।জায়েদা কেঁদে কেঁদে আরো বলেন সরকার যদি একটা থাকার ঘর করে দিত, তাহলে শান্তিতে বাচতে পারতাম।

বৃদ্ধ কর্মহীন মোতালেব মোল্লার এক ছেলে খুলনা থাকে স্ত্রী সন্তান নিয়ে তাদের কোন খোজ নেন না এক মেয়ে প্রতিবন্ধি বিয় দিছেন সেও আছে অশান্তিতে।

মোতালেব মোল্লার এ খবর শুনে গণমাধ্যম কর্মীরা ছুটে যান বৃদ্ধ নোমানের ৩০ বছরের কষ্টের কথা শুনতে। গণমাধ্যম কর্মীদেরকে বৃদ্ধ মোতালেব বলেন,আমার কোনো রকম কর্মও নাই কি করে কি খাইমু। ঘরটা যে উঠাইমু তার কোন উপায় নাই। দুইটা খুটির উপর ঘরটা আছে বাঁশ কিনারা পয়শাও নাই।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© All rights reserved © ২০২২ স্বাধীন বার্তা ৭১
Theme Customized By Theme Park BD